জীবনে সফল হতে চাইলে এই লেখাটি সম্পূর্ণ পড়া জরুরি

এই ধরণের প্রজেক্ট ডিজাইন করতে মাত্র এক থেকে দুই মিনিট প্রয়জন হবে আমার নিজ হাতে তৈরী জুলিন্দিয়া আর্টিফিশিয়াল টেকনোলজি সফটওয়্যার এর দৌলতে। যার ফলে সাধারণ মানুষকে এই সব কাজের জন্যে ১ থেকে ১০ টাকা খরচ করলেই যথেষ্ট, ধরুন ১ মিনিটে ১০ টাকা ইনকাম করতে পারছেন যার জন্যে ৬০ মিনিটে ৬০০ টাকা হচ্ছে, আবার ৬০ মিনিট = এক ঘণ্টা, এবার একঘন্টায় ৬০০ টাকা হলে ৮ ঘন্টা কাজ করলে কতো ইনকাম সম্ভব একদিনে তা বোকাদের মাথায় গোবর থাকার কারণে ঢুকবে না, কিন্তু যারা অংকে অনার্স নিয়ে পড়াশোনা করার পরও সরকার কে চাকরি দেওয়ার জন্যে আন্দোলন করেন, তাদের কাছে আমার একটাই প্রশ্ন – যে আপনি অংকে এতো মেধাবী থাকা সত্ত্বেও কেনো বাস্তব জীবনের উন্নতির জন্যে ফর্মুলা নিজের হাতে তৈরী করতে পারলেন না এর জবাব কিন্তু দিতে হবে ? একটা জীবন কে গড়তে হলে শক্ত পোক্ত ভাবে তা কখনোই ২৫ বছরের মধ্যে এদেশে সম্ভব নাও হতে পারে, অথচ দেশে ১৮ বছর হলেই চাকরি পাওয়ার প্রচলন আছে, যার জন্যে সেইসব লোভে পড়ে পড়াশোনা যায় চলে সরকারের গোলাম হয়ে থাকার জন্যে কি গর্বটাই না কেউ কেউ করে। দাদা একটা কথা মনে রাখবেন পাবলিক কে যারা সম্মান দিতে পারবে তারা এমনিতেই সরকারি আধিকারিক প্রধান ব্যাক্তি পদে স্থান পাবে। যা বুঝতে গেলে অনেক সময় আপনাকে নষ্ট করতে হবে। যাইহোক উপরের প্রশ্নের জবাব দিতে না পারলে এই দেশে নয় এরাজ্যেও কোনো ধরণের চাকরি দেওয়া সম্ভব নয় বর্তমান যুগের সৎ সাহসী অফিসার দের কড়া পদক্ষেপ এর কারণে ভাবতে পারেন, আর এই কথাটা কে মাথায় যত্ন করে রাখবেন কিছুদিন এর মধ্যে টের পেতে শুরু করবেন রাজ্যে একমাত্র সুশিক্ষিত ছাড়া বাকিদের বর্জন করার মতো পরিস্তিতি তৈরী হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে, প্রকাশ্যে জনগণের সামনে ইন্টারভিউ দেওয়ার ব্যাবস্থা করা হবে বর্তমান প্রজন্মের সাথে আগের প্রজন্মের তফাৎ কি রয়েছে তা সকল সাধারণ মানুষকে দেখানোর উদ্দেশ্যে। ১০ বছর ধরে ১০ লক্ষ টাকা নষ্ট করার পরে আজকে যখন তার সুফল ভোগ করতে শুরু করেছি তখন একদল মিথ্যাবাদী সার্থপর নোংরা মনের মানুষ জন হিংসায় ফেটে যাচ্ছে শরীরী -বলছেন আমি নাকি অসৎ পথে রোজগার করি যার জন্যে এতো ইনকাম করার সুযোগ দেখিয়ে দিতে পারছি, কিন্তু অশিক্ষিত লোকগুলো এটা কখনোই মানতে চায়না যে সে নিজে মূর্খ বলেই এতো চিন্তা ধারা করার ক্ষমতা তৈরী করতে পারেনি সুশিক্ষা গ্রহণ না করার পাপে, যা উনি করতে সক্ষম হয়েছেন দীর্ঘদিন কম্পিউটার নিয়ে পড়ে থাকার জন্যে যা মানতে হবে সকলকে। এইসব মূর্খ লোকগুলো সাধারণ একটা হিসাব পর্যন্ত বোঝে না – যেমন একদিন এলাকার মানুষকে বলা হয়েছিল আমাদের জেলায় ১৬ লক্ষ মানুষ আছে আমি এমন একটা প্রোডাক্ট তৈরী করতে শিখেছি যা প্রতিটা মানুষের প্রতিনিয়ত কাজে লাগবে, প্রোডাক্ট কস্ট আমাদের রাজ্যে ১০ টাকা হলে অন্য্ রাজ্যে যেমন দিল্লির কোম্পানির কাছে তা ১০০ টাকা হয়ে যায় কাঁচামাল এর অভাব বা ট্রান্সপোর্ট খরচ বা কেন্দ্রীয় ট্যাক্স এর কারণে, যা আমাদের ক্ষেত্রে একটা টাকাও বেশি খরচ করতে হয়না তার কারণ আমরা নিজেই গ্রামীণ প্রতিবেশী, তাই সেই কাঁচামাল হাতের কাছেই রয়েছে, এছাড়া রাজ্য সরকার ২৫ কোটি টাকার ব্যবসা না হওয়া পর্যন্ত কোনো ধরণের ট্যাক্স নিবেন না বলেই কিন্তু এক গুরুত্বপূর্ণ প্রজেক্ট এই জেলার জন্যে মন্জুর করেছেন। কিন্তু বোকা থাকলে যা হয় আর কি, যে কাঁচামাল এর কথা বলা হলো সেটা সাধারণ মানুষ যখন ২০ টাকায় পাবেন এই রাজ্যের মধ্যে অল্প সময়ের ব্যাবধানে তখন কিন্তু এমনিতেই যতো গুজরাটি, দিল্লীবালি এই রাজ্য কে লুটে খাওয়ার উদ্দেশ্যে এসেছে তারা পালাতে বাধ্য হবে, এটাকেই মোদীজি কৌশল শিক্ষা বলেন, যা কখনোই কাউকে শেখানো হয়না নিজের স্বার্থ সিদ্ধির জন্যে, তবে এইসব কৌশল শিখতে তারাই পারে যারা যুক্তি, নীতি, জ্ঞান কে সম্মান করে এবং নিজেকে সবথেকে বেশি স্মার্ট ও বুদ্ধিমান মনে করতে পারবে তারাই। আর যারা নিজেকে সবসময় দুর্বল ভাবে, বা আমার দ্বারা এটা সম্ভব নয়, তারাই হলেন পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে গাধা গোষ্ঠীর উদাহরণ, কারণ এরা সমাধানের সঠিক রাস্তা যেহেতু জীবনে দেখেনি তাই সবসময় মনে করে এটা খুবই কঠিন বিষয়, যাকে না মরার আগেই ভূতের গল্প বলা হয়ে থাকে সমাজের মানুষ কে সুশিক্ষা দেওয়ার স্বার্থে। ধন্যবাদ। More info about me and my success theory please visit my own AI technology created first development project application software :-   Touch me enjoy you really

Expert Awareness Competition Future Marketing Program in Microsoft Business AI Technology 2020.

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.